আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গাজীপুরের গাছায় একটি স্কুলে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র আটকে রেখে অতিরিক্ত টাকা দাবী!

গাজীপুর প্রতিনিধি ।

গাজীপুর মহানগরের গাছা থানার সুলতান মেডিক্যাল রোডে বি এম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩০ জন এসএসসি পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্র আটকে রেখে প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে আট হাজার টাকার কথিত ফি দাবীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিযোগ পেয়ে পুলিশ স্কুলে গেলে প্রধান শিক্ষকসহ সব স্টাফ পালিয়ে যায়।

ভুক্তভোগী পরীক্ষার্থীরা জানায়, ফরম ফিলাপের নির্ধারিত ফি ও স্কুলের যাবতীয় পাওনা পরিশোধ করেই তারা এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। আরো বহু আগেই তারা আনুষ্ঠানিকভাবে স্কুল থেকে বিদায় নিয়েছেন। ফলে শুধুমাত্র পাবলিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ ছাড়া তারা ওই স্কুলের শিক্ষার্থী হিসেবে আর গণ্য নন। এরপরও স্কুল কর্তৃপক্ষ অহেতুক নানা অজুহাতে তাদের প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর কাছে অযৌক্তিকভাবে ৮ হাজার টাকা করে দাবী করছেন। দাবীকৃত এ টাকা না দেওয়ায় স্কৃুল কর্তৃপক্ষ এডমিট কার্ড আটকে রেখেছিল। সর্বশেষ শনিবার পরীক্ষার আগের দিন তারা এডমিট কার্ড আনতে স্কুলে গেলে ৮ হাজার টাকা দেওয়া ছাড়া এডমিট কার্ড কোন অবস্থাতেই দেয়া হবে না বলে তাদেরকে জানিয়ে দেয়া হয়। অবশেষে তারা নিরুপায় হয়ে গাছা থানায় অভিযোগ করেন। অবশেষে পুলিশের হস্তক্ষেপের পরও প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে নগদ ৬শ’ টাকা করে নিয়ে এডমিট কার্ড বিতরণ করা হয়।

এব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে স্কুলের প্রধান শিক্ষক খলিলুর রহমান বাবুল ফোন রিসিভ করেননি।

গাছা থানার ওসি ইসমাইল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিযোগ পেয়ে স্কুলে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রধান শিক্ষকসহ সকলে পালিয়ে যায়। পরে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি ভুল স্বীকার করেন এবং একজন শিক্ষিকাকে স্কুলে পাঠিয়ে এডমিট কার্ড বিতরণ করান।

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
গাজীপুর ডক্টরস চেম্বার https://www.facebook.com/GazipurDoctorsChamber/