আজ ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শ্রীপুরে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সৌরভ মন্ডলের উপর হামলা ও মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ

শ্রীপুরে কাওরাইদ ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও অন্যান্য নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে কাওরাইদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নেতৃত্বে একটি বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত শ্রীপুর উপজেলা জৈনা বাজার ঢাকা ময়মনসিংহ মহা সড়কের পাশে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। মানব বন্ধনে ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের পাশাপাশি স্কুল, কলেজের শিক্ষার্থীরাও অংশগ্রহণ করেন।
আওয়ামীপন্থী নেতৃবৃন্দ সংগঠন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী উক্ত মানববন্ধনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন,কাওরাইদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া হাসান রিয়াদ, সহ সভাপতি লিয়ন মন্ডল, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সজিব মন্ডল, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শাকিল আহমেদ, যুবলীগ নেতা সোহেল আহমেদ, ফয়সাল সহ অনেকেই।

এসময় বক্তারা বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র চলছে। তাই পরিকল্পিত ভাবেই ছাত্রলীগ নেতাদের নাম জড়িয়ে মিথ্যা ও কাল্পনিক মামলা সাজানো হয়েছে।

তারা বলেন, ছাত্রলীগ সভাপতি সৌরভ মন্ডল সহ ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় সারফুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেছেন। এক সময় যারা বিএনপি জামাতের হয়ে নির্বাচন করেছে, তারা আজকে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে আসামি বানানো হয়েছে।

গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর সরকার বলেন, বিএনপি জামায়াতের মিথ্যা মামলায় কাওরাইদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সৌরভ মন্ডল সহ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও হামলা করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। অবিলম্বে এ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা না হলে সিনিয়র নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে,আমরা পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করবো।

কাওরাইদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া হাসান রিয়াদ বলেন, ছাত্রলীগকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে গৌরব ও ঐতিহ্যের সংগঠকে কলুষিত করার চেষ্টা করছেন। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে সৌরভ মন্ডল বলেন, গত সোমবার (১৭ মে) বিকাল বেলায় অটোরিস্কা ও টমটমকে কেন্দ্র করে ফয়সাল নামে একজন ছাত্রলীগ কর্মী আপোষ মিমাংসা করার জন্য চেষ্টা করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পরবর্তী সময় মৃত মোকলেছুর রহমানের ছেলে কামরুজ্জামান,দুলাল বেপারী ও মুছো মিয়ার নেতৃত্বে ত্রিমোহনী নান্দীয়া সাংঙ্গুন ক্রিকেট খেলার মাঠে ২০/২৫ জনের একটি সঙ্গবদ্ধ দল পরিকল্পিত ভাবে আমার উপরে দেশীয় অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে অতক্রিত হামলা করে। এসময় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আমি প্রানে বেঁচে যায়। এসময় আমার শরীরের বিভিন্ন অংশে হত্যার জন্য আঘাত করে।

নান্দিয়া সাঙ্গুনের ঘটনার পড়ে সেখান থেকে এসে আমার বড় ভাই কাওরাইদ ইউনিয়ন ৮নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি ইকবাল মন্ডলের অফিস ভাংচুর করে এবং অফিসের সামনে থাকা ইকবাল মন্ডলের মোটরসাইকেল ভাংচুর করে রাস্তায় ফেলে দিয়ে চলে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
%d bloggers like this: