আজ ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গাজীপুর মহানগরের ৩৭ নং ওয়ার্ডে সিসি ক্যামেরা প্রকল্প উদ্বোধন

মোঃ রফিকুল ইসলাম ঃ

মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, চুরি, রাহাজানি, ছিনতাইসহ যেকোনো ধরনের অপরাধীকে সহজেই শনাক্ত করা যাবে এই সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে। তাছাড়া ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে আপনারা যে কোন মুহূর্তে পুলিশের সেবা নিতে পারেন। পুলিশ জনগণের বন্ধু হয়ে তাদের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছে নিরন্তর। বুধবার দুপুরে গাজীপুর মহানগরের কুনিয়া তারগাছ এলাকায় সিসিক্যামেরা প্রকল্প উদ্বোধন কালে এসব কথা বলেন গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ ইলতুৎমিশ।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৩৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ সাইফুল ইসলাম দুলাল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জিএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ হাসিবুর রহমান, সহকারী পুলিশ কমিশনার মোঃ আহসানুল হক, জি এমপির গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ইসমাইল হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ শহীদুল্লাহ, আওয়ামী লীগ নেতা শরীফ মাস্টার, মহানগর যুবলীগ নেতা মোঃ সাদ্দাম হোসেন তন্ময় সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে উপ-পুলিশ কমিশনার ইলতুৎমিশ বলেন, সিসি ক্যামেরা উদ্বোধন হওয়ার ফলে এলাকায় সকল ধরনের অপরাধ প্রবণতা কমে যাবে। অপরাধ সংঘটিত হলেও সেটা সহজেই সনাক্ত করা যাবে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে।যেকোনো ধরনের অপরাধ প্রবণতা কমানোর জন্য আগামীতে পুরো মহানগরকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে। তাই সিসি ক্যামেরা সম্প্রসারনের জন্য নগরবাসীর  সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন বলেন, ইতিমধ্যেই বেশ কিছু এলাকাকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। ফলে এলাকায় আগের চেয়ে অপরাধ প্রবণতা অনেকটাই কমে গেছে। ভবিষ্যতে এটির ফলাফল আরো বেশি ভোগ করার জন্য পুরো এলাকাটি সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির ভাষণে কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম দুলাল বলেন, সিসি ক্যামেরা প্রতিস্থাপন এর ফলে আমাদের এলাকায় চুরি ডাকাতি রাহাজানি ইভটিজিং সহ যেকোনো ধরনের অপরাধ প্রবণতা কমে যাবে। তিনি বলেন, এর ফলে অপরাধ করে কেউ পার পাবে না। অপরাধীকে সহজেই সনাক্ত করা যাবে এই সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে। সিসি ক্যামেরা প্রতিস্থাপনের জন্য তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সরকারকে ধন্যবাদ জানান। তিনি অপরাধীদের উদ্দেশ্যে বলেন, যারা অপরাধ করবেন তারা সহজেই সিসিক্যামেরা প্রকল্পের মাধ্যমে ধরা খেয়ে যাবেন। তাই অপরাধীরা সাবধান হয়ে যান। কারণ এই সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে সহজেই অপরাধীরা ধরা খেয়ে যাবে। 

উল্লেখ্য কুনিয়া তার গাছ এলাকায় ৫১ টি পয়েন্টে ২৮৪ টি সিসি ক্যামেরা প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। তাছাড়া গাজীপুর মহানগরের বিভিন্ন থানাকে ইতিমধ্যেই সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
%d bloggers like this: