আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রশাসনের নীরব ভূমিকায় সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীর বাল্যবিয়ে

স্টাফ রিপোর্টারঃ

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ১নং ফুলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের কম্বল পাড়া গ্রামের নুরুল ইসলামের মেয়ে, নুরনাহার ১৩ বছর বয়সে বাল্য বিয়ের ঘটনা ঘটে।
১৩ বছর বয়সের নুরনাহার স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জবেদ আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী।

কিছুদিন যাবত এই বিয়ের পায়তারা শোনা গেলে মেয়ের বাবা নুরুল ইসলামকে এলাকার সচেতন মহল এরা সু-পরামর্শ দিয়ে মেয়েকে বিয়ে দেওয়া থেকে বিরত থাকতে বলে। কিন্তু গত শনিবার ২০শে ফেব্রুয়ারি ২০২১ইং তারিখ বিকেল বেলায় মেয়ে দেখানোর অজুহাতে মেয়ের বাবা নুরুল ইসলাম, আব্দুস সালামের ছেলে, হোসেন আলীর হাতে তার শিশু মেয়েকে তুলে দেয়। ঘটনার অনুসন্ধানে জানা যায় বাল্যবিবাহ কারি ছেলে হোসেন আলীর বসতবাড়ি লালমনিরহাটে সে সাভার-আশুলিয়ার জামগড়া নামক স্থানে ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। বর হোসেন আলী স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জবেদ আলী সরকার উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ মিস্ত্রি স্কুলে যাতায়াত সময় ১৩ বছর বয়সে সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া স্কুলছাত্রী নুরনাহারের ছেলেমানসিকতার দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ভুলিয়ে ভালিয়ে প্রেমের জালে আবদ্ধ করে। তদুপরি সচেতন মহলের চোখ আড়াল করে পারিবারিকভাবে বিয়ে সম্পন্ন হয়।

এ বিষয়ে ছেলের বাবা আব্দুস সালাম এর সাথে মুঠোফোনে ঘটনার বিস্তারিত জানতে চাইলে তিনি বলেন কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই বিয়ের কাজ সম্পন্ন হয়ে যায়, মেয়ের বাবা নুরুল ইসলাম এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার মুঠোফোনটি রিসিভ করেনি।

উপজেলা প্রশাসনের নিকট মুঠোফোনে জানানো হলে, ১নং ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম মিয়াকে অবগত করলে তিনি ঘটনাস্থলের নজরদারি না করে। বাল্যবিবাহ বন্ধ হয়েছে বলে জানান এবং যদি বিয়ে হয়ে থাকে আমি তার আইনগত ব্যবস্থা নিব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
%d bloggers like this: