আজ ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মৌলভী মনির আব্বাসের বিরুদ্ধে গাছা থানার আলেম-ওলামাদের সংবাদ সম্মেলন

নাদিম আফরোজঃ

ফ্রান্সে নবীজি সাঃ এর ব্যঙ্গচিত্র পদর্শন করায় সারা বিশ্বের মুসলমান প্রতিবাদ করছেন। এরই ধারাবাহিকতায় এদেশের তৌহিদী জনতার সর্ববৃহৎ ঈমানী প্লাটফর্ম “হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ” গত ৩০/১০/২০২০ইং রোজ শুক্রবার বাদ জুমা সারা দেশ ব্যাপি বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষনা করেন।

গাজীপুর মহানগরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান গাছা থানাধীন বোর্ডবাজার কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে উলামায়ে কেরামের অংশ গ্রহনে হেফাজতে ইসলামের ব্যানারে প্রায় লক্ষাধীক মুসলিম জনতার অংশ গ্রহনে বিক্ষোভ চলাকালিন স্থানীয় চিন্তিত কিছু ব্যাক্তিবর্গ, গাছা উলামা মাশায়েখ এর ব্যানার দিয়ে হেফাজতের ব্যানার ঢেকে দিতে চাইলে বিশৃঙ্খল পরিবেশ তৈরী হয় এবং মাইক কেড়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটে।

মাইজভান্ডারির অনুসারী নামধারী আলেম মৌলভী মনির আব্বাসী মসজিদে ঢুকে একাধীক আলেমের নাম ধরে গাছা থানায় পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার করাবেন বলে হুমকি দিতে থাকে এবং তিনি জোর গলায় বলেন, আমি থানায় ১০.০০০ হাজার টাকা ও তিন দিন থানায় দৌড়িয়ে এ প্রোগ্রাম আয়োজন করেছি বলে জানান মনির আব্বাসী।

স্থানীয় নেতৃস্থানীয় ব্যাক্তিবর্গরা বিষয়টি সমাধানের উদ্দ্যোগ নেন। বাদ আসর বটতলায় মৌলভী মনির হোসাইন আব্বাসী দলবল নিয়ে
দারুল উলুম মহিলা মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা মুহসিন উদ্দিন নুরিকে একা পেয়ে শারীরিক ভাবে লান্চিত ও কিল ঘুসি মেরে রক্তাক্ত করেন। এবং কি তার নবীজির সুন্নাত তার দাড়ি টেনে ছিড়ে ফেলেন।

পরিস্থিতি ধীরে ধীরে ঘোলাটে হতে থাকলে ৩৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল্লাহ আল মামুন মন্ডল, নবগঠিত ৩৫নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের আহবায়ক হাজী আহম্মদ আলী এবং ৩৩নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের আহবায়ক আব্দুল মজিদ মেম্বারের উদ্দ্যেগে আজ সকালে সমাধান করবে বলে জানান, গাছা উলামা মাশায়েখ ঐক্য পরিষদের সভাপতি।

উভয় পক্ষ উপস্থিত হওয়ার কথা থাকলে নির্ধারিত স্থানে হেফাজতে ইসলাম উলামায়ে কেরাম উপস্থিত হলেও অদৃশ্য কারন দেখিয়ে
গাছা উলামা মাশায়েখ পরিষদের মৌলভী মনির হোসাইন আব্বাসী কোন লোকজন উপস্থিত হননি।

এহেন পরিস্থিতিতে এলাকার মারমুখি অবস্থা বিরাজ করছে, প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে যেকোন সময়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হতে পারে বলে জানান, লেখিত বক্তব্য প্রদান করেন। হেফাজতে ইসলাম গাছা থানার মুরুব্বি গন।

তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে নামধারী আলেম, মাইজভান্ডারি সমর্থন কারী মৌলভী মনির হুসাইন আব্বাসী কে আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি করেন। এবং জেলার মুরুব্বিদের সাথে পরামর্শ করে আগামী কাল আইনি প্রকৃয়া সম্পন্ন করবেন।

হেফাজতে ইসলাম গাছা থানার উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য মুফতি মাওঃ আব্দুল হালীম সাংবাদিক সম্মেলনে জানান, আমরা দায়িত্বশীল উলামায়ে কেরামের তরফ থেকে মাওঃ গোলাম মোস্তফা, মাওঃ মামুনর রশীদ, মাওঃ মুয়াজ্জল হুসাইন খান ও মাওঃ ইউসুফ মিয়াজী উপস্থিত হয়ে এবং মোবাইল ফোনে কমিটির অন্নান্য দায়িত্বশীলদের সাথে কথা বলে বর্তমান কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষনা করেছি।

এবং (৭) সাত সদস্য আহবায়ক কমিটি ঘোষনা করেন। কমিটির আহবায়ক মাওঃ গোলাম মোস্তফা। সদস্য সচিব মাওঃ বিন ইয়ামিন। যুগ্ম আহবায়ক ১/মাওঃ তুফায়েল আহমেদ, ২/মুফতি আব্দুস সবুর, ৩/মাওঃ আবুল বাশার, ৪/মাওঃ মামুনুর রশীদ ও ৫/মাওঃ তাজুল ইসলাম কে।

অল্প সময়ের মধ্যে কাউন্সিলর গনদের মাধ্যমে তারা পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করার নির্দেশ প্রদান করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় গাছা থানা জামে মসজিদের খতিব ও ইমাম গান। গাছা থানার অন্তর্গত মাদ্রাসার মুহতামিম ও শিক্ষকগন। স্থানীয় গাছা প্রেস ক্লাবের কর্মকর্তা ও সদস্য বৃন্দ সহ অন্নান্য সাংবাদিক বৃন্দ।


অভিযুক্ত মাওঃ মনির হুসাইন আব্বাসী

সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে মুঠোফোনে ফোন দিয়ে মাইজভান্ডারি সমর্থন কারী মৌলভী মনির হুসাইন আব্বাসী কে তার বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা জামতে চাওয়া হলে, তিনি রাগ্নিত কন্ঠে জানান আমার ও অভিযোগ আছে তাদের বিরুদ্ধে। আমি থানায় ব্যস্ত আছি, এই বলে লাইন কেটে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
%d bloggers like this: