আজ ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গাজীপুরের বন যেন এখন ধ্বংসের পথে

মোঃ আব্দুল বাতেন বাচ্চু, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

গাজীপুরের শ্রীপুরে একাধারে শিল্প উন্নত এলাকা এবং এই শ্রীপুরই আবার ভাওয়াল ও মধুপুরের গড়ের লিলাভূমি । অসাধারণ সবুজের সমারোহ ঘেরা এই শ্রীপুরে গড়ে ওঠা শিল্প কারখানা ও পাশাপাশি বৃক্ষ সারি যেন বাংলাদেশের একটি আলাদা স্থান করে নিয়েছে।

কিন্তু বৃক্ষ বাঁচানোর জন্য বন বিভাগের যতগুলো উদ্যোগ রয়েছে তার সবগুলোই কি ভালোভাবে বৃক্ষ বাঁচানোতে কাজ করছে ? এ বিষয়গুলো যেমন ভাবতে হবে তেমনি প্রয়োজন খুঁজে বের করা কোন কোন ক্ষেত্রে বৃক্ষ নিধন হচ্ছে, এর সাথে কারা জড়িত এ বিষয়গুলো ।শ্রীপুরের তেলিহাটি গ্রামে গড়ে উঠেছে অনেক বড় বড় কিছু চুল্লী । যেখানে কাঠ পুড়িয়ে কয়লা প্রস্তুত করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

যদি বন থেকে নিয়েই এই কাঠগুলো পোড়ানো হয় তবে নিশ্চিতভাবেই বলা যায় এ কয়লা উৎপাদনের সাথে যারা জড়িত তারা বন উজাড় করার জন্য যথেষ্ট ভূমিকা রাখছে । গ্রামবাসীর বড় একটি কষ্টেরও কারণ এই চুল্লীগুলো। কারণ এখান থেকে যে ধোয়াগুলো নির্গত হয় তা শ্বাস নালীর স্বাভাবিক ক্রিয়া বন্ধে যথেষ্ট ভূমিকা রাখে।

পরিবেশ অধিদপ্তর বর্তমানে শ্রীপুরে লবলং সাগর রক্ষায় ভালো ভূমিকা রাখছে। কিছুদিন আগে টায়ার পোড়ানো একটি ফ্যাক্টরী বন্ধও করেছে। যেহেতু কয়লা পোড়ানো এই চুল্লীগুলো পরিবেশের জন্য বড় হুমকির কারণ সেহেতু দ্রুত এই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন। সাথে সাথে বন বিভাগেরও দায়িত্ব বন ঘেঁষে এমন প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠছে কিনা তা দেখা। বন বিভাগ উদ্যোগী হয়ে এধরণের কায়ক্রম বন্ধে ভূমিকা রাখবেন প্রত্যাশা এটাই।

পরিবেশ অধিদপ্তর এ কর্মকান্ড বন্ধে তাদের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ব্যবস্থা নেবেন এটাও প্রত্যাশা। ভাওয়াল ও মধুপুরের বনাঞ্চল বাঁচাতে এমন পদক্ষেপ নেয়া খুব জরুরী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
%d bloggers like this: