আজ ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

Exif_JPEG_420

বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ গাজীপুর মহানগর শাখার পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ

মোঃআরিফ মৃধাঃ

করুণা ভাইরাসের কারণে সারা বিশ্ব এখন স্তব্ধ হয়ে আছে। সমগ্র বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও করুণার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। বাংলাদেশে ৮ মার্চ ২০২০ ইং প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর পর থেকে একের পর এক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজনের প্রাণহানিও ঘটেছে।

বিশ্বের বড় বড় দেশগুলো করোনার কাছে আজ হার মেনেছে। তারা এখন তাদের সকল চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে একমাত্র পরম করুণাময়ের কাছে ভরসা করে আছে। সৃষ্টিকর্তার উপর ভরসা করা ছাড়া যেন আজ তাদের আর কোন উপায় নেই। চিকিৎসাবিজ্ঞান আজ করোনার কাছে অসহায় হয়ে পড়েছে।প্রতিদিনই নতুন করে মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে এবং মৃত্যুর মিছিলে যোগ হচ্ছে একের পর এক লাশ।

বাংলাদেশে করোনার প্রাদুর্ভাব যাতে আর বাড়তে না পারে সেজন্য সরকার এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের লোকজন চেষ্টা করে যাচ্ছেন।মানুষকে বারবার বুঝানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। অকারণে যাতে করে তারা ঘরের বাহিরে না যায় এবং সকল ধরনের জনসমাগম যাতে এরিয়ে চলে।কিন্তু লক্ষ্য করা গেছে অধিকাংশ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অযথা অকারনে ঘরের বাইরে বেরিয়ে আসছেন এবং অকারণে ঘোরাঘুরি করছেন।

বিশেষ করে হাটে বাজারে প্রচুর জনসমাগম লক্ষ্য করা গেছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে বিশেষজ্ঞদের মতে আগামী দিন বাংলাদেশেকে অনেক বেশি মূল্য দিতে হবে। ইতিমধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বাংলাদেশকে একটি ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হিসেবে ঘোষণা করেছেন। সুতরাং বিশেষজ্ঞদের মতে বাঁচতে হলে মানুষকে অবশ্যই ঘরে থাকতে হবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।সরকার ইতিমধ্যেই অসহায় মানুষ অর্থাৎ নিম্ন শ্রেণীর মানুষ যারা কাজকর্ম হারিয়েছেন তাদের জন্য ত্রাণের ব্যবস্থা করেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন। ত্রাণ নিয়ে কোন ধরনের অনিয়ম সহ্য করা হবে না।

তারপরও বিভিন্ন জায়গায় ত্রাণ নিয়ে ব্যাপক অনিয়মের খবর ইতিমধ্যেই গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট মহলকে ইতিমধ্যেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যাতে করে ত্রণ সামগ্রী সঠিকভাবে মানুষের ঘরে পৌঁছে দেয়া হয়। এ বিষয়ে দলীয় সকল নেতাকর্মীদেরকে ও নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। যাতে করে ত্রাণ সামগ্রী সুষম বণ্টনের মাধ্যমে মানুষের নিকট সঠিক ভাবে পৌঁছে দেওয়া হয়। বিষয়টির ওপর গুরুত্ব দিয়ে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ত্রাণ নিয়ে কোনো ধরনের অনিয়ম সহ্য করা হবে না। সারা বিশ্বের মানুষ এখন ঘরবন্দী। বিশেষ করে অসহায়, গরীব, দুস্থ খেটে খাওয়া মানুষগুলো পড়েছে সবচেয়ে বেশি বিপাকে।

অসহায় মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ গাজীপুর মহানগর শাখা। শুক্রবার ১৭ এপ্রিল বিকাল তিনটার দিকে বোর্ড বাজারে মহানগরের ৩৫ নং ওয়ার্ডের বোর্ড বাজারে বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ মহানগর শাখার উদ্যোগে গরীবদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন সমাজসেবী আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল আজিজ খান ও হাজী মোঃশাহিন খান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন এলাকার সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ, গাছা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ খান, দৈনিক ভোরের দর্পণের সাংবাদিক নজরুল ইসলাম, এ আর হাসেম, আব্দুল খালেক, মোঃ সোহেল মিয়া, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষ। ত্রাণ বিতরণকালে আব্দুল আজিজ খান বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে মানুষ আজ বড় অসহায়। কাজকর্মহীন দরিদ্র মানুষগুলো কাজের সন্ধানে বের হতে পারছে না। যার কারণে তারা পরিবার-পরিজন নিয়ে খুবই কষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করছেন।

আজিজ খান বলেন অসহায়,দরিদ্র মানুষগুলো এখন ঘর বন্দী হয়ে আছে। অসহায় মানুষের কথা চিন্তা করে আমরা আমাদের নিজস্ব অর্থায়নে ত্রাণ বিতরণ করছি।
এ ধারা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ। তিনি বলেন, আল্লাহপাক আমাদেরকে যেটুকু তৌফিক দিয়েছেন, আপনাদের দোয়া নিয়ে সে অনুযায়ী অসহায় মানুষের পাশে আগামীতেও থাকবো এবং তাদেরকে সাহায্য সহযোগিতা করে যাব।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী যার যেটুকু আছে তা দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। সে অনুযায়ী আমি আওয়ামী পরিবারের একজন সদস্য হিসেবে আমার ভাই এবং নেতৃবৃন্দকে নিয়ে ইনশাআল্লাহ আগামীতেও সাহায্যের ধারা অব্যাহত রাখব। এজন্য তিনি সকলের নিকট দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেন। প্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে হাজির শাহিন খান বলেন আমরা আমাদের সাধ্য অনুযায়ী গরীব অসহায় দরিদ্র যার কারণে আজ কর্মহীন হয়ে কষ্টের মধ্যে দিন যাপন করছেন তাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছি ইনশাআল্লাহ আমাদের সাধ্য অনুযায়ী আগামীতে আরও অধিক সাহায্য বিতরণ করার চেষ্টা করব আমরা সকলের কাছে দোয়া চাই।

অনুষ্ঠান শেষে নেতৃবৃন্দ সকলকে করোনা থেকে মুক্তি পাবার জন্য ঘরে থাকার আহ্বান জানান এবং জনসমাগম এড়িয়ে চলার পরামর্শ প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
%d bloggers like this: