আজ ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আর কত রক্ত ঝড়লে মহানগরের ভূষির মিল এলাকার লোকজন শুক্কা শহীদ মন্ডলের হাত থেকে রক্ষা পাবে

বিশেষ প্রতিবেদক :

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ৩৫নং ওয়ার্ড কলম্বেশর ভূষির মিল এলাকায় শহীদুল ইসলাম মন্ডলের বিরুদ্ধে ৮/১০জন সন্ত্রাসীকে নিয়ে দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র দিয়ে এলাকার সাধারণ মানুষকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে এলাকার মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। ভয়ে মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে না। সাধারণ মানুষ নিরাপত্তা চেয়ে গাছা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বৃষ্টির সময় রুস্তমের বাড়ির কবুতরের ঘরটি বাতাসে উড়াইয়া রাস্তায় ফালাইয়া দেয়। তখন রুস্তম ও মোহাম্মদ আলী রাস্তা থেকে কবুতরের ঘরটি আনতে গেলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শহীদুল ইসলাম মন্ডল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী এলোপাথারী দেশীয় অস্ত্র দিয়ে রুস্তমের উপর এলোপাথারী আঘাত করতে থাকে। শহীদুল ইসলাম মন্ডলের সন্ত্রাসী হামলায় রুস্তমকে কুপিয়ে গুরুতর আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয় এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য প্রথমে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। তার অবস্থা ব্যগতিক দেখে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে।

এ ঘটনায় রুস্তমের মা জাহেরা বেগম বাদী হয়ে গাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এলাকাবাসী জানান, দেশ যখন মরণব্যাধি করোনা আতঙ্কে দিশেহারা, ঠিক সেই মুহুর্তে গাজীপুর মহানগরের গাছা থানার অন্তগত ৩৫নং ওয়ার্ডের ভূষির মিল এলাকায় চলছে এক সময়কার বিএনপি জামায়াতের সক্রীয় সদস্য বর্তমান নামধারী আওয়ামীলীগ নেতা গাজীপুর মেট্রো পলিটন পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী হাজী শহীদুল ইসলাম শহীদ মন্ডল ওরফে শুক্কা শহীদ মন্ডলের নেতৃত্বে চলছে আওয়ামী সহযোগী সংগঠনসহ নিরীহ এলাকাবাসীর চরম অত্যাচার, জবরদখল এমন খুনের মত রাহাজানীর ঘটনা। উক্ত কার্যকলাপের উপর কেউ প্রতিবাদ করলে রেহায় পায়না ভূষির মিল এলাকাসহ আশপাশের এলাকার লোকজনও। এত অপকর্ম করেও শহীদ মন্ডল বার বার কিভাবে এলাকাবাসীর উপর এভাবে অত্যাচার করে। বিষয়টি নিয়ে এলাকাবাসীর মাঝে দেখা দিয়েছে হতাশা ও ক্ষোভ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাদে কলম্বেশর এলাকার হাবিজ উদ্দিন মন্ডলের ছেলে হাজী মো: শহীদুল ইসলাম শহীদ মন্ডল ওরফে শুক্কা শহীদ মন্ডলসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীরা এমন কোন অপরাধ নাই যা তারা করে না। মরন নেশা মাদক, জমি দখল, খুন, ছিনতাই, রাহাজানীসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড করে বেড়াচ্ছে। উক্ত অপরাধমূলক কর্মকান্ডের কেউ প্রতিবাদ করলে তার উপর নেমে আসে অমানবিক নির্যাতন। কোন কিছুর উপায় না পেয়ে ভূষির মিল এলাকার নীরিহ জনগণ শুক্কা শহীদ মন্ডলের সন্ত্রাসী বাহিনীর অত্যাচার নিরবে সহ্য করে যাচ্ছে। শুক্কা শহীদের বিরুদ্ধে তৎকালীন গাজীপুর সদর বর্তমান গাছা থানায় ১১টির অধিক সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজী ও ছিনতাইকারী মামলা রয়েছে।

এলাকাবাসী আরো জানান, ২০১৯ সালের ১২ই ফেব্রুয়ারি সজিব তালুকদার (১৭) কে মারধর করে হাত ভেঙ্গে দেওয়ায় রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে গাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৮, ধারা-১৪৩, ৩৪১, ৩০৫, ৩০৭, ৫০৬, ১১৪, ৩০২ ও ৩২৫ মামলা করেন। উক্ত মামলায় শহীদুল ইসলাম শহীদ মন্ডল ওরফে শুক্কা শহীদসহ ৬ জনের নামে একটি মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলা দায়ের করার কারণে শহীদ মন্ডল ক্ষিপ্ত হয়ে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন রকম হুমকি ধমকি প্রদান করে আসছে। তারাই ধারাবাহিকতায় গত ২০১৯ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি সকাল ৭টার সময় গার্মেন্টস কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম তার কর্মস্থলে যাওয়ার পথে শহীদুল ইসলাম শহীদ মন্ডল, ভাগিনা রবিউল ইসলাম রাহাত, রাসেল আহমেদ, মো: জাহাঙ্গীর আলম, শাকিল আহমেদ, ফারুক হোসেন, আবুল কাশেম, মর্তুক, আরিফসহ রফিকুল ইসলামকে গতিরোধ করে লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বেধরক মারধর করে তার পায়ের হাটু ভেঙ্গে পঙ্গু করে দেয়। তা আজও পঙ্গুত্ব জীবন যাপন করছেন রফিকুল ইসলাম। এব্যাপারে ২০১৯ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি গাছা থানায় একটি ধারা-১৪৩, ৩৪১, ২২৪,৩২৬,৩০৭, ৩৭৯, ৪২৭, ৫০৬, ১১৪ ধারায় একটি মামলা হয়, যার মামলা নং-৩৬।

অপরদিকে ০১/০৯/২০১৯ইং তারিখ সন্ধ্যায় প্রচন্ড গরমে গাছা থানা ছাত্রলীগ নেতা সোলাইমান হোসেন বাবু মন্ডল (২২)। এলাকাবাসী আরো জানান, শরীফপুর এলাকার বিএসএমএল নামক একটি ফ্যাক্টরীর সামনে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শীর্ষ সন্ত্রাসী শহীদুল ইসলাম ওরফে শুক্কা শহীদ মন্ডলের নেতৃত্বে ১০/১২ জনের সন্ত্রাসী দল ছাত্রলীগ নেতা বাবু মন্ডল, মো: সুজন, পারভেজ, রুস্তম আলী মন্ডল ও মোহাম্মদ আলী মন্ডলের উপর সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা চালায় এবং দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। এ বিষয়ে বাবুর বাবা ইউনুস আলী মন্ডল বাদী হয়ে গাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। শুধু তাই নয়, উক্ত ঘটনার পর ভূষির মিল এলাকার সাধারণ জনগণ শহীদ মন্ডল ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে একাধিকবার চাঁদাবাজী, মাদক ব্যবসা, অস্ত্র নিয়ে মহড়া, মারধরসহ গাজীপুর মেট্রোপলিটন গাছা থানায় একাধিক লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।

এব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানান, শহীদুল ইসলাম মন্ডল ওরফে শুক্কা শহীদ মন্ডলের অত্যাচারে আমরা অতিষ্ঠ। সে গাজীপুরের পুলিশ ও র‌্যাব কয়েকবার আটক করলেও সে জামিনে এসে পুর্নরায় সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে এলাকায় অতিষ্ঠ করে গড়ে তুলেছে। পুুলিশের নিকট আমাদের প্রশ্ন একজন তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী হয়ে কি ভাবে সে এলাকায় এভাবে জান ও মালের ক্ষতিসাধন করে। শুক্কা শহীদ মন্ডলের বিচার করার মতো কি গাজীপুর প্রশাসনের কোন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা কি নেই? আমরা শুক্কা শহীদ মন্ডলর হাত থেকে বাঁচতে চাই।

এব্যাপারে গাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: ইসমাইল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শহীদুল ইসলাম মন্ডল ওরফে শুক্কা শহীদের বিরুদ্ধে গাজীপুর সদর থানা ও বর্তমান গাছা থানায় একাধিক মামলা ও জিডি রয়েছে। গতকালের ঘটনার খবর পাওয়ার সাথে সাথে আমরা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেছি। এব্যাপারে গাছা থানায় মামলা হয়েছে এবং ঘটনার সাথে জড়িত ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
%d bloggers like this: